মোবাইলে জিমেইল অ্যাপ ব্যবহার করার নতুন নিয়ম

বিশ্বে এক বিলিয়নের অধিক মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারী ইউজার নিয়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় ইমেইল ক্লায়েন্ট অ্যাপ হলো জিমেইল। ২০০৪ সালে যাত্রা জিমেইল শুরু করে এই সার্ভিস বিশাল পথ পাড়ি দিয়ে আজকের এই অবস্থানে এসে দারিয়ে আছে । কম্পিউটারের পাশাপাশি আপনার মোবাইল থেকেও জিমেইল অ্যাপে এর প্রায় সমস্ত ফিচার ব্যাবহার করতে পারবেন।

এই পোস্টে আমরা মোবাইলে জিমেইল অ্যাপ ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আপনার এন্ড্রয়েড ফোনে জিমেইল অ্যাপ ডিফল্ড ভাবে ইনস্টল করা থাকে। আইফোনের ক্ষেত্রে একটু ভিন্যতা অ্যাপ স্টোর থেকে Gmail সার্চ করে খুঁজে ইন্সটল করে নিতে হবে। এই পোস্টে আমরা জিমেইল অ্যাপ এর বেসিক থেকে এডভান্সড লেভেলের বিভিন্ন ধরনের ব্যবহার সম্পর্কে সহজ ভাষায় ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করবো বিস্তারিত জানতে অঅমাদের সাথেই থাকুন।

জিমেইল অ্যাপ থেকে ইমেইল পাঠানোর নিয়ম

প্রথমে আপনার ফোনের জিমেইল অ্যাপটি ওপেন করুন,যদি আপনার জিমেল একাউন্ট না থাকে তাহলে সাইনআপ করতে হবে জিমেইল একাউন্ট তৈরী করতে হবে। যদি আপনার জিমেইল একাউন্ট থাকে তাহলে লগইন করতে হবে। লগইন শেষ হলে ফোনের ডানদিকের নিচের কর্নারে থাকা পেন্সিল আইকনযুক্ত Compose বাটনে ট্যাপ করুন তারপর যাকে মেইল পাঠাতে চান To ফিল্ডে তার ইমেইল এড্রেস লিখুন। To এর পাশে থাকা ড্রপ ডাউনে ট্যাপ করলে CC ও BCC ফিল্ড দেখতে পাবেন। Subject ফিল্ডে ইমেইল এর বিষয় লিখুন, Compose email ফিল্ডে ইমেইল লিখুন। টপে থাকা সেন্ড আইকনে ট্যাপ করে ইমেইল সেন্ড করুন।

ইমেইল ফরম্যাট করার নিয়ম

জিমেইল অ্যাপে টেক্সট ফরম্যাটিং করার ফিচার যুক্ত করেছে Google যার মাধ্যমে টেক্সট কালার করা, আন্ডারলাইন করা, ইটালিক বা বোল্ড করা যায়েএকদম সহজেই।

এমনকি আপনি চাইলে ইমেইলে ইমোজি ও ব্যাবহার করতে পারবেন। আপনি যেকোনো টেক্সটকে ডাবল ট্যাপ করে সিলেক্ট করুন ও এরপর অ্যাকশন মেন্যু থেকে Format বাটনে ট্যাপ করুন। Bold, Italics, Underline ইত্যাদি অপশন গুলো যেটা আপনার প্রয়োজন সেটা সিলেক্ট করে আপনার পছন্দমতে টেক্সট ফরম্যাট করতে পারবেন। তাছাড়া চাইলে টেক্সট কালার ও ব্যাকগ্রাউন্ডও পরিবর্তন করতে পারবেন।

ইমেইলে ফাইল এড করার নিয়ম

জিমেইল অ্যাপের মাধ্যমে আপনার ফোনে থাকা সকল ফাইল, যেমনঃ ডকুমেন্ট, ফটো, ও ভিডিও, ইত্যাদি পাঠানো যাবে ইমেইলের মাধ্যমে। এছাড়া বক্স, ড্রপবক্স, গুগল ড্রাইভ, ও অন্যান্য ক্লাউড স্টোরেজ সার্ভিস থেকেও ফাইল ইমেইলে এটাচ করে পাঠাতে পারবেন। তবে লোকাল ফাইল আপলোড এর লিমিট ২৫ এমবি’র মধ্যে । এর চেয়ে বড় ফাইল পাঠাতে হলে আপনাকে প্রথমে তা Google Drive (বা অন্য কোনো ক্লাউড স্টোরেজে) আপলোড করে তারপর পাঠাতে হবে।

প্রথমে Compose বাটনে ট্যাপ করে নতুন ইমেইল লেখার পেজ ওপেন করুন। এরপর স্ক্রিনের টপে থাকা এটাচমেন্ট আইকনে ট্যাপ করে ফাইল সিলেক্ট করুন। Attach file সিলেক্ট করে ফোনে থাকা ফাইল অথবা Insert from Drive সিলেক্ট করে ড্রাইভে থাকা ফাইল এড করতে পারবেন। এবং তা খুব সহজেই অপর প্রান্তে থাকা মানুষটি খুব সহজেই আপনার পাঠানো ফাইল পেয়ে যাবে।

আপনার ফোনে একাধিক ইমেইল একাউন্ট এড করার নিয়ম

জিমেইল অ্যাপে আপনি চাইলে একাধিক ইমেইল একাউন্ট এড করে রেখে ব্যাবহার করতে পারবেন। তাতে আপনি একটি ফোনে কয়েকটি মেইল আপনি খুব সহজেই ব্যাবহার করতে পারবেন।আপনার জিমেইলে একাধিক একাউন্ট এড করতে প্রথমে ডানদিকের টপ কর্নারে থাকা প্রোফাইল পিকচারে ট্যাপ করুন। এরপর Add another account অপশনে ক্লিক করে আপনার অন্য ইমেইল এড্রেস এড করতে পারবেন। এখানে চাইলে জিমেইল, মাইক্রোসফট হটমেইল, ইয়াহু মেইল সহ প্রায় যেকোনো ধরনের ইমেইল এড করতে পারবেন। অর্থাৎ জিমেইল অ্যাপ থেকে অন্যান্য কোম্পানির ইমেইল একাউন্টও ব্যবহার করা যাবে।

ইমেইল মিউট করার নিয়ম

আমাদের অনেকের কাছে নটিফিকেশন সাউন্ড গুলো ভিরক্ত লাগে। যদি আপনার এমনটাই মনে হয় তাহলে উক্ত ইমেইল কনভার্সেশন মিউট করে রাখতে পারেন। এতে উক্ত ইমেইল Archived সেকশনে চলে যাবে আর নতুন মেসেজ এলে নোটিফিকেশন আসবেনা। তবে উক্ত মেসেজ ওপেন না করা পর্যন্ত স্ট্যাটাস Unread থাকবে। কোনো ইমেইল মিউট করতে উক্ত ইমেইল লং প্রেস করে সিলেক্ট করুন। এছাড়া ইমেইল সেন্ডার ইমেজ এর উপর ট্যাপ করলেও অপশন দেখতে পাবেন। এরপর থ্রি-ডট মেন্যু থেকে Mute অপশন সিলেক্ট করুন।

ডিলিট করা ইমেইল রিকভার করার নিয়ম

আপনি যদি কোনো ইমেইল ভুলে ডিলিট করে ফেলেন চিন্তার কোনো কারণ নেই। ট্র‍্যাশ বক্সে গিয়ে ভুলে ডিলিট করা ইমেইল রিকভার করতে পারবেন খুব সহজেই। হ্যামবার্গার আইকনে ট্যাপ করে Trash অপশন সিলেক্ট করলে ডিলিট করা সকল ইমেইল গুলো দেখতে পারবেন। এরপর এক বা একাধিক ইমেইল সিলেক্ট করে থ্রি-ডট মেন্যুতে ট্যাপ করে Move to অপশন সিলেক্ট করুন। এরপর যে ফোল্ডারে ইমেইল ফিরে পেতে চান সে ফোল্ডার সিলেক্ট করুন। এভাবে খুব সহজে ভুলে ডিলিট করা ইমেইল ফিরে পেতে পারেন।

Leave a Comment